ওভুলেশন কি ? ওভুলেশন কিভাবে হয় ? ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে|গর্ভধারণের জন্য সবচাইতে উপযুক্ত সময় বোঝার উপায় ?

এই পোস্ট হতে নিম্নবর্ণিত তথ্য সমূহ জানা যাবে;

  • ওভুলেশন কি ?
  • ওভুলেশন কিভাবে হয় ?
  • ওভুলেশন কি কখন হয় ?
  • ওভুলেশন কিভাবে হয় ?
  • ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে ?
  • মাসিকের কত দিন পর মিলন করলে সন্তান হয়?
  • প্রেগনেন্সির ঝুঁকি কম থাকে পিরিয়ডের কত দিন পর  ?

ওভুলেশন

ওভুলেশন কি ?

ডিম্বাশয়  থেকে মাসিকের ১৩-১৬ তম দিনের মধ্যে ( যাদের নিয়মিত মাসিক হয় ) ডিম্বাণু  বের হয় এই ঘটনাকে ওভুলেশন বলে। এই সময় শুক্রাণু ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করার সুযোগ পায় এবং গর্ভধারণ সম্ভম হয়। ডিম্বানু ফেলপিয়ান টিউব থেকে বের হওয়ার পর ১২-২৪ ঘন্টা বেঁচে থাকে । এই সময় শুক্রানু ফেলপিযান টিউবে আসলে নিষেক ক্রিয়া সম্পন্ন হয় । এই সময় নিয়মিত মেলামেশা করলে গর্ভধারণ সম্ভবনা অনেক বেড়ে যায় । কোন দিন থেকে মেলামেশা করতে হবে অথাৎ ওভুলেশন বোঝার উপায়  তা নিম্নের ছকে দেওয়া হলো :

আপনার মাসিক কত দিনেকোন দিন  থেকে মেলামেশা শুরু করবেন
২১দিনের৬ তম দিন  থেকে
২২দিনের৬ তম দিন  থেকে
২৩দিনের৭ দিন  থেকে
২৪ দিনের৭ তম দিন  থেকে
২৫দিনের৮ তম দিন  থেকে
২৬ দিনের৯তম দিন  থেকে
২৭ দিনের১০ তম দিন  থেকে
২৮ দিনের১১ তম দিন  থেকে
২৯ দিনের১২ তম দিন  থেকে
৩০ দিনের১৩তম দিন  থেকে
৩১ দিনের১৪তম দিন  থেকে
৩২ দিনের১৫ তম দিন  থেকে
৩৩ দিনের১৬তম দিন  থেকে
৩৪  দিনের১৭তম দিন  থেকে
৩৫ দিনের১৮ তম দিন  থেকে
৩৬ দিনের১৯ তম দিন  থেকে
৩৭ দিনের২০ তম দিন  থেকে
৩৮ দিনের২১ তম দিন  থেকে
৩৯ দিনের২২ তম দিন  থেকে
৪০ দিনের৩০ তম দিন  থেকে

২১ দিন হতে ৪০ পর্যন্ত যাদের মাসিকের  ডিউরেশন তাদের নিয়মিত মাসিক হিসাবে গণ্য করা হয় । এই ডিউরেশনের বাহিরে যাদের পিরিয়ড হয় অর্থাৎ ১৯ দিন অথবা ৪১ দিন পর পর যাদের পিরিয়ড সম্পন্ন হয় তাদের ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে।

ওভুলেশন অর্থ কি|ওভুলেশন বোঝার উপায়| ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে|গর্ভধারণের জন্য সবচাইতে উপযুক্ত সময়
ওভুলেশন অর্থ কি|ওভুলেশন বোঝার উপায়| ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে|গর্ভধারণের জন্য সবচাইতে উপযুক্ত সময়

আরও জানুনঃ ব্লাড গ্রুপ কি ? স্বামী স্ত্রীর ব্লাডের গ্রুপ এক হলে কি কি সমস্যা তৈরী হয় এবং স্বামী এবং স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ সম্পর্কিত সতর্কবার্তা

প্রশ্ন: ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে?

উত্তর: ডিম্বানু ফেলপিয়ান টিউব থেকে বের হওয়ার পর ১২-২৪ ঘন্টা বেঁচে থাকে ।

 প্রশ্ন: মাসিকের কত দিন পর মিলন করলে সন্তান হয়?

 উত্তর: মাসিকের কত দিন পর মিলন করলে সন্তান হয় উপরের ছকটি অনুসরণ করুন।

প্রশ্ন:পিরিয়ডের কত দিন পর কম থাকে প্রেগনেন্সির ঝুঁকি ?

উত্তর: সাধারণত পিরিয়ডের ২১ দিন পর থেকে ?

 ওভুলেশন কি বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

রিলেটেড ট্যাগঃ ওভুলেশন কি ? , ওভুলেশন কিভাবে হয় ? ,ওভুলেশন কি কখন হয় ?, ওভুলেশন কিভাবে হয় ,ডিম্বাণু কত দিন জীবিত থাকে ?, মাসিকের কত দিন পর মিলন করলে সন্তান হয়?,পিরিয়ডের কত দিন পর কম থাকে প্রেগনেন্সির ঝুঁকি ?

11 Comments

  1. SEO Referral Program 28th January 2020
  2. AffiliateLabz 15th February 2020
  3. Royal CBD 21st May 2020
  4. Royal CBD 29th May 2020
  5. Hallie 14th June 2020
  6. cheap flights 29th January 2021
  7. cheap flights 29th January 2021
  8. we.riseup.net 19th May 2023
  9. whatsapp onay 23rd May 2023

Leave a Reply